এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > 2019-এ কি আবার ফিরে আসবে 2016-এর রাজনৈতিক সমীকরণ? জল্পনা কিন্তু বাড়ছেই

2019-এ কি আবার ফিরে আসবে 2016-এর রাজনৈতিক সমীকরণ? জল্পনা কিন্তু বাড়ছেই

Priyo Bandhu Media

রাজ্যে বিগত 2016 র বিধানসভা নির্বাচনে শাসক দল তৃণমূলের বিরুদ্ধে জোর লড়াই করতে কংগ্রেস এবং বামেদের জোট নিয়ে বিভিন্ন মহল থেকে তীব্র কটাক্ষ শানালেও দু’পক্ষই প্রথম থেকে এই জোটের ব্যাপারে খুবই খুশি। তবে বিভিন্ন কারণে বিধানসভা নির্বাচনের পর আর সেই জোট খুব একটা দীর্ঘস্থায়ী হয়নি।

এদিকে সামনেই লোকসভা নির্বাচনের জন্য সেই বাম- কংগ্রেস জোট যাতে আবার করা যায় তার জন্য অনেক দিন ধরেই তদবির চলছে দুই শিবিরে। তবে দুই দলের শীর্ষ নেতৃত্বের তরফে এমন কোনো সবুজ সংকেত না পাওয়ায় সেই ব্যাপারে এগোয়নি প্রদেশের নেতৃত্বরাও।

জাতীয় রাজনীতিতে বিজেপিকে সরাতে যখন মেট্রো চ্যানেলে ধরনায় বসেছেন তৃণমূল নেত্রী তথা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঠিক তখনই সেই তৃণমূল নেত্রীকে ফোন করে তাঁর পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন খোদ কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধী। যা নিয়ে কিছুটা অস্বস্তিতে পড়েছে প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্ব। কেননা প্রথম থেকেই রাজ্যের সিংহভাগ কংগ্রেস নেতারা তাঁদের হাইকমান্ডের কাছে আবেদন জানিয়ে এসেছে যে, রাজ্যে তাদের মূল বিরোধী দল তৃণমূল কংগ্রেস।

তাই কোনোমতেই তৃণমূলের সাথে যেন জোট করা না হয়। এমনকি রাজ্যে কি রাজনৈতিক সমীকরণ হবে তা নিয়ে প্রদেশের ওপর এই সমস্ত সিদ্ধান্ত ছেড়ে দেওয়ার কথা শোনা গেছে কংগ্রেসের হাইকমান্ডের গলাতেও। আর এরই মাঝে হঠাৎ তৃণমূল নেত্রীকে কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতির ফোন যখন প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্বদের কিছুটা হলেও হতাশ করেছে, ঠিক তখনই সোমবার দিল্লিতে কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধীর সাথে সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরির বৈঠককে ঘিরে রাজ্য রাজনীতিতে শুরু হয়েছে তুমুল জল্পনা।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

আর দুই দলের শীর্ষ নেতার এই বৈঠকে তাহলে কি ফের 2016 র বিধানসভা নির্বাচনের মতোই 2019 এর আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে রাজ্যে সেই বাম-কংগ্রেস জোট নিয়েই আলোচনা হল! একাংশের মনে যখন এই জল্পনা চলছে, ঠিক তখনই এই ব্যাপারে মুখ খুলে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র বলেন, “আমি এই ব্যাপারে কিছুই জানিনা। সংবাদ মাধ্যম সূত্রেই আমি এই খবরটি জানতে পারলাম। বাংলায় জোট নিয়ে কোনো আলোচনা হলে আমরা নিশ্চয়ই জানতে পারতাম, হয়ত তেমন কোনো আলোচনা বা সিদ্ধান্ত হয়নি। কিন্তু এই দুই নেতার আলোচনায় আমরা প্রত্যেকেই খুশি।”

পাশাপাশি আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে কোন মতেই রাজ্যে তৃণমূলের সঙ্গে জোট করা হবে না বলেও এদিন জানিয়ে দিয়েছেন প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, মেট্রো চ্যানেলে তৃণমূল নেত্রীর বিজেপি বিরোধী ধরনায় যখন কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধী তাঁকে ফোন করে পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন এবং এই ঘটনায় যখন হাইকমান্ডের আচরণে কিছুটা হলেও হতাশ হয়েছেন রাজ্যে প্রদেশ কংগ্রেসের নেতারা, ঠিক তখনই সেই কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধীর সাথে সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরির বৈঠক বঙ্গের প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্ব ও আলিমুদ্দিন স্ট্রিটের নেতাদের মনে অনেকটাই অক্সিজেন যোগাল বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!