এখন পড়ছেন
হোম > 2018 > December (Page 2)

আপৎকালীন বৈঠকে দিল্লিতে ডাক পড়ল মুকুল রায়ের, জল্পনা বাড়ছে গেরুয়া শিবিরের অন্দরে

আপৎকালীন ভিত্তিতে ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির তরফে বাংলার দায়িত্ত্বপ্রাপ্ত নেতা মুকুল রায়কে দিল্লিতে ডেকে পাঠালেন অমিত শাহ বলে সূত্রের খবর। তাঁর সঙ্গে তাঁর অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত এক সংখ্যালঘু নেতা সফরসঙ্গী হয়েছেন বলে জানা গেছে। আর, এই খবর সামনে আসতেই তীব্র জল্পনা শুরু হয়েছে গেরুয়া শিবিরের অন্দরে। আর কয়েকদিন বাদেই দিল্লিতে

মুখ্যমন্ত্রীর সাধের মতুয়া ভোটে বিজেপি থাবা বসাতেই নতুন ভাবনা তৃণমূলের – ক্রমশ জমছে লড়াই

নদীয়া জেলায় মতুয়া ভোটব্যাঙ্ক ঠিক কাদের দখলে থাকবে এখন তা নিয়ে প্রবল দ্বৈরথ শুরু হয়েছে রাজ্যের বর্তমান শাসকদল তৃনমূল ও বিরোধী দল বিজেপির মধ্যে। একে অপরের অহি-নকুল শত্রু হিসেবে পরিচিত এই দুই দলই এখন লোকসভায় নিজেদের মতুয়া ভোটব্যাংককে শক্তিশালী করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। যখনই শাসকদলের পক্ষ থেকে সেই মতুয়াদের নিয়ে সভা

কি করে ভোট করতে হয় জানি ! দিল্লি কেন আমেরিকা থেকে ফোর্স আনলেও জিতব, বিরোধীদের উপর পাচনের বাড়ি শুরু : অনুব্রত

লোকসভা ভোট যতই এগিয়ে আসছে ততই বিজেপির বিরুদ্ধে সুর চড়াতে দেখা যাচ্ছে রাজ্যের শাসকদলের নেতা মন্ত্রীদের। আর বিজেপিকে তীব্র ভৎসনা ও কটাক্ষ করার দিক থেকে সবার শীর্ষে রয়েছেন বীরভূমের জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। বিগত বিধানসভা হোক বা পঞ্চায়েত- একের পর এক বিতর্কিত মন্তব্য করে রাজ্য রাজনীতিকে সরগরম করে তুলেছিলেন মমতা

বলিউডের নামী বাঙালি অভিনেত্রী এবার বাংলা থেকে বিজেপির টিকিটে লোকসভা নির্বাচনে? জল্পনা চরমে

আসন্ন লোকসভা নির্বাচন উপলক্ষে সব রাজনৈতিক দলই ঘুঁটি সাজাতে শুরু করে দিয়েছে। কোন দলের হয়ে কে কোথায় প্রার্থী হচ্ছেন - সেই জল্পনায় সরগরম রাজ্য রাজনীতি। তবে বাংলার ক্ষেত্রে সবথেকে বেশি আগ্রহ দুটি দলকে নিয়ে - তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপি। আর সেটাই স্বাভাবিক - কেননা একদিকে তৃণমূল কংগ্রেসের দলনেত্রী হুঙ্কার দিয়েছেন বাংলায়

শান্তিনিকেতনের বুকে রবীন্দ্র-স্মৃতি ফিরিয়ে আনতে হেভিওয়েট মন্ত্রীর বড়সড় পদক্ষেপ – জানুন বিস্তারিত

ক্ষমতায় আসার পর থেকেই বাংলার স্থাপত্য কীর্তিকে পুনরুদ্ধার করতে উদ্যোগী হয়েছিল রাজ্যের বর্তমান মা- মাটি-মানুষের সরকার। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর থেকে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বোস, বাংলার মনীষীদের সম্মান জানানো যে বাংলার নাগরিকদের কর্তব্যের মধ্যে পড়ে তা বিভিন্ন সময় বুঝিয়েও দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে শুধু বাংলার মনীষীদেরই নয়, সেই বিখ্যাত মনীষীদের উদ্যোগে তৈরি বিভিন্ন সংস্থাকে স্বীকৃতি

রাজ্য সরকারের প্রস্তাবিত 60 হাজার গ্রুপ ডি পদে নিয়োগ কি শীঘ্রই? বোর্ডের নির্দেশিকায় বাড়ছে আশার আলো

গ্রুপ ডি র 60 হাজার কর্মী নিয়োগের জন্য রাজ্যে তৈরি হয়েছিল গ্রুপ ডি রিক্রুটমেন্ট বোর্ড। 2016 র 1 জানুয়ারি থেকে এই বোর্ড নিজেদের কাজ শুরু করলেও তিন বছর যেতে না যেতেই দেখা দেয় সমস্যা। কিন্তু এখনও পর্যন্ত সেই নিয়োগের ব্যাপারে কোনরূপ পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ একাংশের। এমনকি এতদিন এই গ্রুপ

রাজ্য সরকারের কাজে ঢিলেমি দেখলে এবার অভিযোগ জানান সরাসরি মুখ্যমন্ত্রীর মস্তিষ্কপ্রসূত কমিশনে

2011 সালে রাজ্যে পালাবদলের পরে ক্ষমতায় এসেই সাধারণ মানুষ যাতে সরকারি সুযোগ-সুবিধা পেতে কোনো রকম অসুবিধার সম্মুখীন না হন সেই ব্যাপারে উদ্যোগী হয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সাধারণ মানুষকে সঠিক সময়ের মধ্যে সরকারি পরিষেবা পৌঁছে দিতে রাজ্যের পক্ষ থেকে চালু করা হয়েছিল জন পরিষেবা অধিকার আইনও। যে আইনের মাধ্যমে একটি দপ্তর যদি

আইনি জটে আটকে রথযাত্রার ভবিষ্যৎ, 42 টি লোকসভায় গেরুয়া ঝড় তোলার পরবর্তী পরিকল্পনা কি?

গণতন্ত্র বাঁচাও নামক রথযাত্রা কর্মসূচি নিয়ে সারা রাজ্যজুড়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে ঝড় তোলার প্রবল চেষ্টা করেছিল গেরুয়া শিবির। এমনকি বাংলার তিন প্রান্ত থেকে শুরু হওয়া এই রথযাত্রা ঘিরে বিজেপির নিচুতলার নেতা কর্মীদের মধ্যেও সৃষ্টি হয়েছিল প্রবল উদ্দীপনা। কিন্তু সময় যত এগিয়েছে, ততোই বিজেপির সেই পরিকল্পনা একের পর এক ধাক্কা খেয়েছে। যা

একুশে পা তৃনমূলের – জাতীয় রাজনীতির অভিমুখ ঘোরাতে এবার অন্য শপথে অন্যভাবে ‘জন্মদিন’ পালন

1, 2 করতে করতে আগামীকাল 2019 র 1 জানুয়ারি 21 বছরে পা দেবে রাজ্যের বর্তমান শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। প্রতিবারের মতো এবারও সেই তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী সমর্থকরা দলের জন্মদিন পালন করতে তৎপর হয়ে উঠেছেন। কিন্তু 21 বছরে তৃণমূলের এই পদার্পণ রাজনৈতিক দিক থেকেও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞ মহলের একাংশ। মূলত,

প্রথম শ্রেণী থেকে গ্র্যাজুয়েশন পর্যন্ত – শুধু হুগলি জেলাতেই ৫৭ হাজার সংখ্যালঘু পড়ুয়াকে ১১ কোটির স্কলারশিপ রাজ্য সরকারের

হুগলি জেলার প্রথম থেকে গ্র্যাজুয়েশন পর্যন্ত সংখ্যালঘু পড়ুয়াদের স্কলারশিপ পাওয়া নিয়ে বড়সড় তথ্য উঠে এল প্রশাসনিক রিপোর্টে। ২০১৭-১৮ আর্থিক বর্ষে সংশ্লিষ্ট জেলায় প্রায় ৫৭ হাজার সংখ্যালঘু পড়ুয়াকে স্কলারশিপ হিসাবে প্রায় ১১ কোটি টাকা দিচ্ছে রাজ্য সরকার। এর মধ্যে প্রায় ৯ কোটি টাকা ইতিমধ্যেই পড়ুয়াদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে পাঠানো হয়েছে বলে সূত্রের

Top
error: Content is protected !!