এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > ২০১৪ সালে কেন ক্ষমতায় এসেছিলো বিজেপি? কারণ জানালেন তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা

২০১৪ সালে কেন ক্ষমতায় এসেছিলো বিজেপি? কারণ জানালেন তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা

লোকসভা ভোট ঘাড়ের কাছে নিঃশ্বাস ফেলছে। এদিকে গুটি গুটি পায়ে এগিয়ে আসছে ১৯ জানুয়ারির তৃণমূলের ব্রিগেড সমাবেশ। বছর ঘুরতেই শাসকদলের বহু কাঙ্খিত ব্রিগেড চলো অভিযান। বিজেপি বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোকে এক ছাতার তলায় আনার উদ্দেশ্যেই মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই বৃহত্তর সমাবেশের ডাক দিয়েছিলেন। দেশের বিভিন্ন প্রান্তের অবিজেপি রাজনৈতিক দলের শীর্ষকর্তারা তৃণমূল নেত্রীর প্রস্তাবে সাড়া দিয়েছেন বলেও খবর রয়েছেন।

এই ব্রিগেড সমাবেশে প্রস্তুতি কিন্তু শুরু হয়েছে কয়েক মাস আগেই। এখন চলছে শেষ পর্বের প্রচার মূলক কর্মসূচি। জেলা এবং ব্লক স্তর থেকে রেকর্ড পরিমান লোক জমায়েত করার লক্ষ্যমাত্রা দিয়ে রেখেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নেত্রীর নির্দেশ অক্ষরে অক্ষরে পালন করতেই জেলায় জেলায়,ব্লকে ব্লকে সভা করছেন জেলার দলীয় শীর্ষ নেতৃত্বরা। এদিন সমাবেশ সফল করতে গঙ্গারামপুর রবীন্দ্র ভবনে একটি কর্মীসভার আয়োজন করা হয়েছিল। সভামঞ্চ থেকেই তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা সুব্রত বক্সি বিজেপি সরকারকে তুলোধনা করলেন। সুব্রত বাবুর সঙ্গে একই মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন জেলা সভাপতি বিপ্লব মিত্র, সাংসদ অর্পিতা ঘোষ মতো তৃণমূলের হেভিওয়েটরা।

এদিন কেন্দ্রীয় সরকার এবং বিজেপি নেতৃত্বের বিরুদ্ধে মিথ্যাচারের অভিযোগ এনে সুব্রত বক্সি জানালেন, ২০১৪ সালে মানুষকে ভুল বুঝিয়ে ভোটে জিতেছে মোদী। শুধুমাত্র দেশের ক্ষমতায় আসার লোভে ভুরি ভুরি মিথ্যে কথা বলেছিলেন তিনি। বছরের দু কোটি কর্মসংস্থান হবে,গ্যাসের দাম কমবে, রাম মন্দির তৈরি হবে, পেট্রোল ডিজেলের দাম কমবে এরকম গুচ্ছ গুচ্ছ মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন নরেন্দ্র মোদী। এমনটাই অভিযোগ তৃণমূল নেতার।

তিনি আরো জানান, মোদী আচ্ছে দিনের স্বপ্ন দেখিয়ে কেন্দ্রের ক্ষমতা এলেও তাঁর জামানা দেশবাসী সবথেকে বেশি ভোগান্তির শিকার। জিএসটি,পেট্রোপন্যের লাগামছাড়া মূল্যবৃদ্ধি,ক্রমবর্ধমান বেকারত্ব,নোটবন্দি ইত্যাদি নানা সমস্যায় জর্জরিত হয়েছে মানুষ মোদী সরকারের আমলে। তাই নরেন্দ্র মোদী যে কতো বড় প্রতারক সেটা বুঝতে আর বাকি নেই আমজনতার!

 

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

তিনি আরো বললেন,২০১৯ এর লোকসভা ভোটই প্রমাণ দিয়ে দেবে মানুষ কতোটা বিজেপি বিদ্বেষী হয়েছে। দেশে যে আজ বিজেপি বিরোধী হাওয়া প্রবল এর জন্যেই নরেন্দ্র মোদীর দিকেই অভিযোগের আঙুল তুললেন তিনি। পাশাপাশি পশ্চিমবঙ্গ সরকারের জনস্বার্থমুখী ৪৭ টি প্রকল্পের ভূয়সী প্রসংশা করলেন তিনি।

বললেন,বাংলার মুখ্যমন্ত্রী ক্ষমতায় এসে রাজ্যবাসী স্বার্থে গত ৭ বছরে যা করেছেন তা নজিরবহীন এবং প্রশংসার যোগ্য। এর সঙ্গে তুলনা টেনে কেন্দ্রীয় সরকারের ‘বেটি বাঁচাও বেটি পরাও’ প্রকল্পের কটাক্ষ করলেন তিনি। বললেন,মমতা ব্যানার্জিকে অনুকরণ করেই মোদী ‘বেটি বাঁচাও,বেট পরাও’ প্রকল্প চালু করেছেন। কিন্তু বাংলার মুখ্যমন্ত্রী যতোটাই সফল হয়েছেন ততোটাই ব্যর্থ নরেন্দ্র মোদী,এমনভাবেই চাঁচাছোলা ভাষায় কেন্দ্রীয় সরকারকে এদিন তোপ দাগলেন তৃণমূলের এই প্রথম সারির নেতা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!