এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নদীয়া-২৪ পরগনা > ১৩ তারিখ পর্যন্ত ব্যস্ত থাকবেন অর্জুন সিং! তারপরেই…মমতা প্রশাসনকে কড়া চ্যালেঞ্জ!

১৩ তারিখ পর্যন্ত ব্যস্ত থাকবেন অর্জুন সিং! তারপরেই…মমতা প্রশাসনকে কড়া চ্যালেঞ্জ!

রাজ্যের যুযুধান দুই রাজনৈতিক শিবির হলো তৃণমূল এবং বিজেপি। লোকসভা নির্বাচনের পর এই দুই রাজনৈতিক দল ক্রমাগত যুদ্ধে জড়াতে থাকেন। এবং তার সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ে দুই রাজনৈতিক দলের মধ্যে রাজনৈতিক সংঘর্ষ। লোকসভা ভোটের আগেই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেন অর্জুন সিং। যথারীতি ভাটপাড়াও অর্জুন সিং এর সাথেই সবুজ রং ছেড়ে কমলা রং এ প্রবেশ করে। শুধু ভাটপাড়ায় নয়, নৈহাটি গারুলিয়া ইত্যাদি পৌরসভাগুলিও একে একে বিজেপির ছত্রছায়ায় যেতে থাকে। কিন্তু পরবর্তীতে তৃণমূল আবার প্রতিটি পুরসভাকে উদ্ধার করতে সমর্থ হয় এবং ভাটপাড়া পৌরসভা নিয়ে বিজেপি নেতা অর্জুন সিংকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে হয়। তবে এবার আবার অর্জুন সিং ও পিছিয়ে না থেকে তৃণমূলের বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিলেন।

বর্তমান পরিস্থিতিতে তৃণমূলকে কটাক্ষ করে অর্জুন সিং জানালেন, উপ নির্বাচনে জেতার পর রাজ্য সরকার ভেবে নিয়েছে যে তাঁরা আগামী দিনের সব রাজনৈতিক যুদ্ধে জিততে পারবে, যদিও তা কোনোভাবেই সম্ভব নয়। সদ্যসমাপ্ত এই উপ নির্বাচনে জিতে তৃণমূল পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় রাজনৈতিক তান্ডব শুরু করেছে। ইতিমধ্যে কাঁচরাপাড়ায় বিজেপি কর্মীদের ওপর তৃণমূল পরিকল্পিতভাবে রাজনৈতিক হামলা চলিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিজেপি নেতা অর্জুন সিং।

অর্জুন সিং আরও জানিয়েছেন, তৃণমূলের সাথে এইসব হামলায় অংশ নিচ্ছে ব্যারাকপুরের কমিশনার মনোজ বর্মা ও জেলার পুলিশ সুপার অজয় ঠাকুর। এর আগেও লোকসভা নির্বাচনের সময় অর্জুন সিং এর ওপর হামলার ঘটনায় মনোজ বর্মার দিকে অভিযোগের আঙুল তুলেছিল রাজ্য বিজেপি দল। এদিন আবারও বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং অভিযোগ করলেন, দুই পুলিশ আধিকারিক মনোজ বর্মা ও অজয় ঠাকুরের নেতৃত্বে এবং রাজ্য সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায় বিভিন্ন জায়গায় বিজেপির ওপর রাজনৈতিক হামলা চালাচ্ছে তৃণমূল।

তবে অর্জুন সিং এদিন রাজ্য সরকারকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, 13 তারিখ পর্যন্ত তিনি সংসদের কাজে ব্যস্ত থাকবেন। কিন্তু তারপর এলাকার পরিস্থিতি নিয়ে ব্যারাকপুরের প্রশাসনকে ভুগতে হবে। অর্জুন সিং প্রশ্ন তুলেছেন, লোকসভা ভোটের পর যেখানে ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চল পুরোপুরি শান্ত ছিল, হঠাৎ করে এ ধরনের অশান্তি হওয়ার কারণ কি? অর্জুন সিং সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এদিন চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে বলেন, রাজনৈতিক লড়াই শুরু করেছেন যখন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, তখন এই লড়াই শেষ হবে বিজেপির তত্ত্বাবধানেই।

ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চল থেকে শুরু করে কাঁচরাপাড়া পর্যন্ত একের পর এক পুরসভা বেদখল হয়ে যাওয়াতে এমনিতেই বিজেপি শিবির যথেষ্ট চিন্তিত। ইতিমধ্যে কাটাছেঁড়া শুরু হয়েছে এই নিয়ে। লোকসভা ভোটের পর যে পরিমাণ সদস্য তৃণমূল থেকে বিজেপিতে গিয়েছিল, তাতে বিজেপি শিবিরের দিকে পাল্লা যথেষ্ট ভারী ছিল বলে মনে করা হয়েছিল। অন্যদিকে, রাজনৈতিক মহলের বক্তব্য অর্জুন সিং একপ্রকার রাজ্য সরকারকে সরাসরি গন্ডগোলের হুমকি দিয়ে রাখলেন। এই পরিস্থিতিতে রাজ্য সরকার রাজনৈতিক ঝামেলা এড়ানোর জন্য কি ব্যবস্থা নেন ব্যারাকপুরে শিল্পাঞ্চলে, সেদিকে নজর রাখবে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞের দল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!