এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতার অদূরেই ১০০ পরিবারকে এলাকাছাড়া ও গায়ের জোরে জমি দখলে অভিযুক্ত তৃণমূল কাউন্সিলর

কলকাতার অদূরেই ১০০ পরিবারকে এলাকাছাড়া ও গায়ের জোরে জমি দখলে অভিযুক্ত তৃণমূল কাউন্সিলর

“দুই বিঘা জমি” কবিতায় রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর লিখেছিলেন, “এই জগতে হায় সেই বেশি চায় আছে যার ভুড়ি ভুড়ি, রাজার হস্ত করে সমস্ত কাঙালের ধন চুরি”-বহুদিন আগের এই কবিতাটি আজও সমানভাবে প্রাসঙ্গিক। আর তাইতো এই কবিতার কাহিনীর মতই এবার প্রায় 100 টি পরিবারকে শাসকদলের কাউন্সিলরের কোপে পড়তে হয়েছে বলে অভিযোগ

সূত্রের খবর, স্বাধীনতার আগে থেকেই শ্রীরামপুর পুরসভার 29 নম্বর ওয়ার্ডের প্রভাস নগর এলাকায় কয়েক বিঘা জমিতে চাষবাস করে জীবন কাটান 100 টি পরিবার। এরা প্রত্যেকেই গরিব পরিবার বলেই পরিচিত। কিন্তু গত শনিবার রিষড়া পুরসভার প্রাক্তন চেয়ারম্যান তথা বর্তমানে 10 নং ওয়ার্ডের তৃনমূল কাউন্সিলর শঙ্কর সাউ লোকজন নিয়ে এসে হঠাৎই সেই জমির মাপযোগ শুরু করে দেন। অভিযোগ,এই জায়গা থেকে বাসিন্দাদের সরে যাওয়ার জন্য হুমকিও দেন এই শাসকদলের কাউন্সিলর।

আর এরপরেই জোটবদ্ধ হয়ে গ্রামবাসীরা সেই কাউন্সিলর ও তাঁর লোকজনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করলে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যান তাঁরা। কেন তাঁদের জমিতে এইভাবে মাপযোগ? এই প্রসঙ্গে এখানকার বাসিন্দারা  বলেন, “অনেকদিন ধরে এখানে বাস করছি। কেন কাউন্সিলর এইরকম করলেন জানি না। বিষয়টি আমরা আমাদের স্থানীয় কাউন্সিলর এবং পুলিশকে জানিয়েছি। প্রয়োজনে আদালতেরও দ্বারস্থ হব।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

তবে এই বিষয়ে কি বলছেন সেই শ্রীরামপুর পুরসভার 29 নং ওয়ার্ডের তৃনমূল কাউন্সিলর রাজেশ সিং? এদিন তিনি বলেন, “কেউ যদি কোনো কাগজ ছাড়া এখানকার বাসিন্দাদের উচ্ছেদ করতে যায় তাহলে তা প্রতিহত করার জন্য আইন আছে। আমাদির দল সব সময় এই গরিব পরীবারগুলোর পাশে থাকবে।” কিন্তু এক কাউন্সিলরের মুখে গরিবি প্রেম শোনা গেলেও এক আরেক কাউন্সিলর এইরুপ কান্ড করে বসলেন! কিন্তু যার বিরুদ্ধে এই অভিযোগ সেই এদিন অভিযুক্ত কাউন্সিলর শঙ্কর সাউ এই নিয়ে কোনো পতিক্রিয়া দেননি। সব মিলিয়ে এখন জমি দখলে অভিযুক্ত হিসাবে শাসকদলের কাউন্সিলরের নাম উঠে আসায় চরম চাঞ্চল্য শ্রীরামপুর পুরসভার প্রভাস নগর এলাকায়।

Top
error: Content is protected !!